অশ্বখুরাকৃতি হ্রদ কাকে বলে? অশ্বখুরাকৃতি হ্রদ কিভাবে সৃষ্টি হয়

অশ্বখুরাকৃতি হ্রদ কিভাবে সৃষ্টি হয়

অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ কাকে বলে?

নদীর মধ্যগতির শেষে এবং নিম্নগতিতে অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদের (ox-bow lake) সৃষ্টি হয়। এই হ্রদ অনেকটা ঘোড়ার খুরের মত আকৃতি হয় বলে এর নাম দেওয়া হয়েছে অশ্বখুরাকৃতি হ্রদ।

অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ কীভাবে তৈরি হয়?

পার্বত্য প্রবাহের পর নদী যখন নিম্নপ্রবাহে প্রবাহিত হয় সেই সময় নদীর গতিবেগ খুব কম থাকায় নদী প্রবাহপথে কোনাে বাধা পেলে অথবা নদীখাতে সঞ্চয়ের ফলে চর সৃষ্টি হলে নদী আঁকাবাঁকা পথে অগ্রসর হতে থাকে। 

নদী এঁকেবেঁকে প্রবাহিত হওয়ার ফলে নদীর জলরাশি দুই তীরে বাঁধাপ্রাপ্ত হয় এবং নদীর অন্তঃবাঁক বা উত্তল পাড়ের তুলনায় বহিঃবাঁকে বা অবতল পাড়ে জলস্রোত বেশি থাকে ফলে নদীর অবতল তীরে ক্ষয়কার্য চলে এবং অপরদিকে, বিপরীততীরে অর্থাৎ উত্তল তীরে জলস্রোত কম থাকায় পলি, কাদা ইত্যাদি সঞ্জিত হতে থাকে।

এইভাবে ক্রমান্বয়ে নদী যখন ক্রমশ এঁকেবেঁকে প্রবাহিত হতে থাকে তখন কালক্রমে দুই বাঁকের মধ্যবর্তী ভূমি সম্পূর্ণ ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে অবশেষে লুপ্ত হয়।

তখন নদী বাঁকা পথ ছেড়ে সোজা পথে প্রবাহিত হতে শুরু করে এবং পরিত্যক্ত বাঁকটি প্রধান নদী থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে হ্রদে পরিণত হয়। এই হ্রদ দেখতে ঘােড়ার খুরের মতাে হয় বলে এই হ্রদকে অশ্বক্ষুরাকৃতি হ্রদ বলা হয়।

আরো পড়ুন:

শেষ কথা 

অশ্বখুরাকৃতি হ্রদ কিভাবে সৃষ্টি হয় এই প্রশ্নটি মাধ্যমিক ভূগোল এর খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রশ্ন। তাই অবশ্যই বন্ধুদের সাথে সেয়ার করুন যাতে তারাও এই প্রশ্নের উত্তর জানতে পারে এবং আপনার যদি কোন প্রশ্ন থাকে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন।

মন্তব্যসমূহ

এই ব্লগটি থেকে জনপ্রিয় পোস্টগুলি

মরু অঞ্চলে বায়ুর কাজের প্রাধান্য লক্ষ্য করা যায় কেন ?

ঝুলন্ত উপত্যকায় জলপ্রপাত দেখা যায় কেন?

আধুনিক ইতিহাসের উপাদান হিসেবে আত্মজীবনী ও স্মৃতিকথার গুরুত্ব কোথায়